আপনার শ্যাম্পুতে এইসব নেই তো? কেনার আগে কী কী দেখে কিনবেন?

বাজারে শ’য়ে শ’য়ে শ্যাম্পু পাওয়া যায়। কিন্তু কোনও শ্যাম্পু কেনার আগে শুধুমাত্র তার ব্র্যান্ড, বা ঠিক কোন কারণে এই শ্যাম্পু ব্যবহার করবেন- সেইটুকু দেখেই চলবে না। বরং তার পাশাপাশি দেখে নেওয়া উচিত, ওই শ্যাম্পু ঠিক কোন কোন উপাদান দিয়ে তৈরি। আর তাতেই আপনার চুল হয়ে উঠবে সুন্দর এবং একই সঙ্গে স্বাস্থ্যকর। নামে বা দামে ভুলে গিয়ে এমন শ্যাম্পু কিনবেন, যা আসলে চুলের ক্ষতি করছে। শ্যাম্পু কেনার আগে তাই কোন কোন জিনিসের দিকে লক্ষ্য রাখবেন, রইল তার তালিকা।

১। উপাদানে নজর

শ্যাম্পুতে ফ্যানা তৈরির জন্য সালফেট-নির্ভর উপাদান থাকে। মূলত সোডিয়াম লরেথ সালফেট (sodium laureth sulfate, SLES) বা সোডিয়াম লরিল সালফেট (sodium lauryl sulfate, SLS)। কিন্তু এই সোডিয়াম ত্বকের জন্য মোটেই ভালো নয়। এর থেকে ত্বকের সাধারণ সমস্যা, চুলকানি যেমন হতে পারে, তেমনই দীর্ঘদিন ধরে এই সালফেটের সংস্পর্শে এলে ত্বকের ক্যানসার পর্যন্ত হতে পারে। এখন অড়েক বেশি পরিমাণে সালফেট-ফ্রি বা সালফেট মুক্ত শ্যাম্পু বাজারে আসছে। এতে ফ্যানার মাত্রা অনেক কম হয় বটে, কিন্তু এগুলো থেকে ত্বকের ক্ষতির পরিমাণ অনেকটাই কমে যায়। তাই শ্যাম্পু কেনার আগে তার উপাদানের তালিকায় সালফেট আছে কি না, দেখে নিন। থাকলে, সেই শ্যাম্পু বাদ দিন।

২। বেবি শ্যাম্পুর ব্যবহার

বেবি শ্যাম্পু শুধুমাত্র বাচ্চাদের ব্যবহারের জন্য বলে ভাবেন? তাহলে কিন্তু সঠিক রাস্তায় বাবছেন না আপনি। কারণ বেবি শ্যাম্পু বা বাচ্চাদের শ্যাম্পু ব্যবহার করতে পারেন বড়রাও। কারণ এইশ্যাম্পুতে খুব বেশি ফ্যানা হয় না ঠিকই, তবে তার পাশাপাশি এই শ্যাম্পুতে ক্ষতিকারক উপাদানও খুব কম থাকে। অধিকাংশ বেবি শ্যাম্পুই তৈরি হয় প্রাকৃতিক উপাদান দিয়ে। এতে রাসায়নিকের পরিমাণ কম রাখা হয়। তবে বেবি শ্যাম্পুর দাম অনেক ক্ষেত্রে বড়দের ব্যবহার করার শ্যাম্পুর তুলনায় বেশি হয়। তাই অর্থনৈতিক বিষয়টির কথা উপেক্ষা করলে বড়রাও ব্যবহার করতে পারেন শিশুদের শ্যাম্পু।

৩। ক্রিম দেওয়া শ্যাম্পু কি ভালো

তেলমিশ্রিত বা ক্রিমি শ্যাম্পু অনেকেই ব্যবহার করেন। তাঁরা মনে করেন, এতে চুলে একটা স্বাভাবিক ঔজ্জ্বল্য আসবে। কিন্তু মনে রাখবেন, যাঁদের চুল পাতলা, তাঁরা এই জাতীয় শ্যাম্পু ব্যবহার করবেন না। কারণ পাতলা চুল সহজেই চটচটে হয়ে পড়ে। পাতলা চুলে এই জাতীয় শ্যাম্পু ব্যবহার করার অর্থ, তাকে আরও বেশি করে চটেচটে করে ফেলা। তার বদলে হালকা এবং ভলিউম বাড়ানোর মতো শ্যাম্পু ব্যবহার করুন। তাতে পাতলা চুল ভালো থাকবে। শ্যাম্পু কেনার আগে দেখে নেবেন, এই জাতীয় তৈলাক্ত উপাদান আছে কি না। আপনার পাতলা চুল হলে তেমন শ্যাম্পু এড়িয়ে চলবেন।

৪। শ্যাম্পু নাকি কন্ডিশনার

আপনার চুল খুব ঘণ কিন্তু শুষ্ক? সেক্ষেত্রে তেলযুক্ত শ্যাম্পু ব্যবহার করতে পারেন। কিন্তু তার থেকেও ভালো হবে, যদি আপনি কন্ডিশনার সমেত শ্যাম্পু কেনেন। প্রকৃতপক্ষে শ্যাম্পুর চেয়েও আপনার বেশি দরকার কন্ডিশনার। তাই সাধারণ শ্যাম্পু ব্যবহার করলেও, কন্ডিশনারের ক্ষেত্রে বেসি পরিমাণে অর্থ ব্যয় করুন। ভালো মানের কন্ডিশনার কিনুন। অনেক শ্যাম্পুতেই কন্ডিশনার মেশানো থাকে। তেমন শ্যাম্পুও বাছতে পারেন।

৫। প্যারাবেনস নেই তো

অনেক শ্যাম্পুতেই প্যারাবেনস বা তার কোনও যৌগ মেশানো থাকে। এই যৌগ অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল বা ব্যাকটেরিয়া-নাশক। কিন্তু একই সঙ্গে এই উপাদান ক্যানসারে কারণও হতে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা যাচ্ছে, ক্যানসার আক্রান্ত টিউমারের সঙ্গে এই প্যারাবেনস-এর সরাসরি যোগাযোগ রয়েছে। তাই এি যৌগ থাকলে, সেই শ্যাম্পু ব্যবহার না করাই ভালেো।