Home / বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি / যে ঝর্ণাটি থেকে রক্ত ঝড়ে, জেনে নিন রহস্য!

যে ঝর্ণাটি থেকে রক্ত ঝড়ে, জেনে নিন রহস্য!

হিম শীতল আবহাওয়া। বরফে ঢাকা জলপ্রপাত। সেই বরফের মাঝে রক্তের ছাপ। দ্বীপের হিমবাহ থেকে অঝোরে নির্গত হচ্ছে রক্ত। অ্যান্টার্কটিকার এই জলপ্রপাতকে বলা হয় রক্তের জলপ্রপাত । এই জলপ্রপাতের রহস্য এখনও খুঁজে পাওয়া যায়নি। বিজ্ঞানীরা এখনো এর রহস্যের সন্ধানে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

গবেষকদের মতে, সেখানকার মাটিতে থাকা আয়রন ও সালফারের পরিমাণ অনেক বেশি হওয়ায় পানির রঙ লাল হয়। এই লাল পানিই বরফের মাঝে রক্তের মতো মনে হয়। অ্যান্টার্কটিকার এই রক্তের নদীকে প্রথমবার ১৯১১ সালে আবিষ্কার করেছিলেন অস্ট্রেলিয়ান ভূতাত্তিক গ্রিফিথ টেলর। প্রথমে তিনি মনে করেন এই লাল রঙ আণুবীক্ষণিক লাল শেত্তলাগুলি জন্য হয়েছে। যদিও এই তত্ত্ব ২০০৩ ভুল প্রমাণিত হয়।

একটি নতুন গবেষণায় পাওয়া যায়, এই পানিতে আয়রন অক্সাইডের মাত্রা বেশি ছিল। অক্সিডাইস্ড আয়রনের কারণে এই পানির রঙ লাল। গবেষকরা আরো একবার এই রহস্যময় জলপ্রপাত থেকে নির্গত লাল পানিকে নিয়ে একটি তত্ত্ব সামনে এনেছেন। কলোরাডো কলেজ এবং আলাস্কা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি নতুন গবেষণায় জানা গেছে এই পানি একটি বিশালাকার তালাব থেকে আসছে।অন্যদিকে আরেকদল গবেষক বলেন, কোন অনুজীব এর ফলে এমনটা ঘটে, যদিও শূণ্যের অনেক নিচের হিম শীতল আবহাওয়াতে কোনো অনুজীবের টিকে থাকা প্রায় অসম্ভব একটা ব্যাপার । বর্তমান ধারনা সেখানকার মাটিতে থাকা অনেক পরিমান আয়রণ ও সালফারের কারনে পানির রঙ লালে। এদিকে এত ঠান্ডার মাঝেও কেন লাল পানিগুলি জমে বরফে পরিণত হচ্ছেনা সেটাও একটা রহস্য।

Check Also

ছাত্রজীবনে বা অবসর সময়ে এই কাজটুকু করুন আর ১ বছরে লাখপতি হয়ে যান।

ছাত্রজীবনে বা অবসর সময়ে প্রতি ঘণ্টায় মাত্র ১মিনিট এই কাজটি করলে আপনি ১বছরে লাখপতি হতে …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *