Home / অদ্ভুত খবর / মা জানতেই পারেননি, মেয়ের এই ছবিতেই লুকিয়ে রয়েছে ‘সাক্ষাৎ মৃত্যু’র অবয়ব। ভাইরাল হলো ফোটো

মা জানতেই পারেননি, মেয়ের এই ছবিতেই লুকিয়ে রয়েছে ‘সাক্ষাৎ মৃত্যু’র অবয়ব। ভাইরাল হলো ফোটো

তিনি বা মলি— কেউই ছবি তোলার সময়ে টেরই পাননি যে, ‘সাক্ষাৎ মৃত্যু’ মলির কতখানি কাছে এসে গিয়েছে।

Bianca Dickins

এই সেই ছবি (ছবি: বিয়াঙ্কার ফেসবুক প্রোফাইল)

প্রেক্ষাপটটা ছিল রীতিমতো আনন্দের। গত ২৯ মার্চ অস্ট্রেলিয়ার ভিক্টোরিয়ার বাসিন্দা বিয়াঙ্কা ডিকিনসন তাঁর দু’ বছরের মেয়ে মলিকে নিয়ে বেড়াতে গিয়েছিলেন উইমেরায়। সঙ্গে ছিলেন পরিবারের অন্যান্যরাও। গাড়িতেই পুরো পথটা পাড়ি দেওয়া হয়েছিল। গন্তব্যে পৌঁছনোর পরে রাস্তার ধারে মলির একটা ছবি নেওয়ার কথা মনে হয় বিয়াঙ্কার। মলিকে নিজের ইচ্ছের কথা জানাতেই সে-ও ‘পোজ’ দিয়ে দাঁড়িয়ে পরে রাস্তার ধারে তারের বেড়ার সামনে। ছবিও উঠে যায় ঠিকঠাক।

মলির ছবিটিকে খুঁটিয়ে দেখতে গিয়ে বিয়াঙ্কা বুঝতে পারেন, তিনি বা মলি— কেউই ছবি তোলার সময়ে টেরই পাননি যে, ‘সাক্ষাৎ মৃত্যু’ মলির কতখানি কাছে এসে গিয়েছে। ছবিটিতে দেখা যায়, মলির পায়ের কাছে শুয়ে রয়েছে একটি বিশাল খয়েরি রং-এর ইস্টার্ন ব্রাউন স্নেক, যা পৃথিবীর দ্বিতীয় সর্বাধিক বিষধর সাপ বলে পরিচিত। প্রতি বছর অস্ট্রেলিয়ায় সবচেয়ে বেশি সংখ্যক মানুষের মৃত্যু হয় এই সাপের কামড়েই।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমকে বিয়াঙ্কা জানিয়েছেন, ‌’আমরা প্রথমে ভেবেছিলাম, ওটা একটা গাছের ডাল বুঝি। একেবারে নিশ্চল ভাবেই পড়ে ছিল সাপটা। মলিও কিছু বোঝেনি। হাসিমুখে পোজ দিয়ে দাঁড়িয়েছিল সে। কিন্তু ছবি তোলা হয়ে যাওয়ার পরেই দেখি জিনিসটা একটু একটু নড়ছে। তখনই বুঝি, সাক্ষাৎ মৃত্যু পড়ে রয়েছে আমার মেয়ের পায়ের কাছে।’

বিয়াঙ্কার ফেসবুক আর ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলের সেই পোস্ট

কিন্তু কী হল তার পর? বিয়াঙ্কা জানাচ্ছেন, ‘মুহূর্তের জন্য একেবারে হতবুদ্ধি হয়ে গিয়েছিলাম। তার পরেই মনে হল, একেবারে নিশ্চল নিস্পন্দ হয়ে দাঁড়িয়ে থাকাটাই বোধ হয় বুদ্ধিমানের কাজ। মলিকেও চিৎকার করে বলে দিলাম যে, ও যেন না নড়ে। ও সেই মতো দাঁড়িয়ে রইল। তার পর আস্তে আস্তে সাপটা ঝোপের মধ্যে গলে গেল।’

বাচ্চাদের সঙ্গে বিয়াঙ্কা (ছবি: বিয়াঙ্কার ফেসবুক পেজ)

ইস্টার্ন ব্রাউন স্নেক (ছবি: উইকিপিডিয়া)

নিজের ফেসবুক আর ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে ছবি-সহ গোটা ঘটনার কথা বিয়াঙ্কা শেয়ার করার পরেই একেবারে ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সেই ছবি। আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমেও ছবিটি প্রকাশিত হয়েছে। কিন্তু সেই নিয়ে কোনও উচ্ছ্বাস নেই বিয়াঙ্কার গলায়। এখনও যেন আতঙ্কের রেশ কাটছে না তাঁর। “দু’ দিন আমি ঠিক মতো খেতে বা ঘুমোতে পারিনি। খালি মনে হচ্ছে, সে দিন সামান্য ভুল হলেও আমার মেয়েকে হারাতো হতো”; জানাচ্ছেন বিয়াঙ্কা। মলি অবশ্য নির্বিকার। সে আগের মতোই খেলে বেড়াচ্ছে বাড়ির বাগানে। ‘সাক্ষাৎ মৃত্যু’ যে প্রায় তার পদচুম্বন করে গিয়েছে, সে কথা জানেই না সে।

Check Also

সুনামগঞ্জে বিয়ের দিন কনের প্রসবব্যথা, পরদিন সন্তান জন্মদান!

হাবিবুর রহমান নাসির, ছাতক সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি:: দোয়ারাবাজার উপজেলায় বিয়ের দিনেই প্রসবব্যথা ওঠার পরদিন সন্তান জন্ম …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *